in

কোভিড যোদ্ধা পরিচয়ে টিকা গ্রহণ, মীরার বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড়

করোনা যোদ্ধার ভুয়া পরিচয় দিয়ে ভ্যাকসিন গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে প্রিয়াংকা চোপড়ার বোন অীভনেত্রী মীরা চোপড়ার বিরুদ্ধে। সম্প্রতি মুম্বইয়ের একটি ভ্যাকসিনেশন সেন্টার থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছেন তিনি। কোভিড ভ্যাকসিন গ্রহণের পর উচ্ছ্বসিত হয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় অনুগামীদের সঙ্গে আনন্দ ভাগ করে নিয়েছিলেন। তারপরেই উঠেছে বিতর্কের ঝড়।

মহারাষ্ট্রের থানে মিউনিসিপল করপোরেশনের নথিতে মীরার পরিচয় মহারাষ্ট্রের কোভিড যোদ্ধা হিসাবে নথিভুক্ত করা। আর সেই জন্যেই দ্রুত করোনা টিকা পেয়েছেন তিনি। এই বিতর্ক ঘিরে প্রশ্নের মুখে পড়েছে মহারাষ্ট্রের ভ্যাকসিন দেওয়ার গোটা প্রক্রিয়াটি। এই বিষয়ে মুখ খুলেছেন মীরা।

নিজের উপর ওঠা অভিযোগ সম্পুর্ন অস্বীকার করেছেন তিনি।

সোস্যাল মিডিয়ায় একটি বিবৃতি প্রকাশ করে সত্যতা তুলে ধরলেন নায়িকা। তিনি জানিয়েছেন, আমরা সকলেই চাই ভ্যাকসিন পেতে। তার জন্যে আমরা সবাই নিজেদের মতো করে প্রচেষ্টা চালাচ্ছি। সমানভাবে আমিও চেষ্টা চালাচ্ছিলাম আমার চেনাশোনা মানুষদের থেকে এই বিষয়ে সাহায্য চেয়েছিলাম। অবশেষে ১ মাস পরে আমি একটি সেন্টারে নিজের নাম নথিভুক্ত করতে পেরেছিলাম। সোস্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া নিজের ভুয়া পরিচয়পত্রটি সম্বন্ধে কোন ধারণাই নেই নায়িকার। তিনি জানিয়েছেন, সেন্টার থেকে কেবল আমার আধার কার্ড পাঠাতে বলা হয়েছিল। সোস্যাল মিডিয়ায় যে আইডি ছড়িয়েছে তা আমার নয়। রেজিস্ট্রেশনের জন্যে আমার আধার কার্ড চেয়েছিল তারা। আর ব্যক্তির স্বাক্ষর ছাড়া কোন পরিচয় পত্রই বৈধ হয়না। টুইটারে আমার প্রথম চোখে পরে নিজের নকল পরিচয় পত্র। আমি তীব্র বিরোধীতা করছি এমন জঘন্য কাজের। কে বা কেন এই কাজ করেছে সেটা আমি জানতে চাই।

বিনা বেতনে তিন মাস কাজ করবে মালয়েশিয়ার মন্ত্রিপরিষদ

অভিনয় জীবনের ৫২ বছর