in ,

বৃষ্টি হলেই যানজটের ভোগান্তি

বেলা ১২টা থেকেই রাজধানীতে থেমে থেমে বৃষ্টি। এতে বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতার। অল্প বৃষ্টিতেই সড়কে পানি জমে যাওয়ায় বেশ কয়েকটি এলাকায় যানজট দেখা গেছে। বৃষ্টি ও যানজটে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে ঘর থেকে বের হওয়া মানুষদের।

বৃষ্টি শেষে গুলিস্তান, ফুলবাড়িয়া, জিরো পয়েন্ট, পল্টন, প্রেস ক্লাব, দৈনিক বাংলা, বিজয় নগর, কাকড়াইল, শান্তিনগর, মালিবাগের আশেপাশের সড়কে যানজট দেখা গেছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন প্রয়োজনীয় কাজে বের হওয়া মানুষেরা।

গুলিস্তান থেকে রামপুরা যেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা পর বাসের উঠেছেন এমরান আলী। তিনি বলেন, বৃষ্টিতে গুলিস্তানের কিছু কিছু জায়গায় জলাবদ্ধতা হয়েছে। সেই পানি পেরিয়ে বাসে উঠার চেষ্টা শুরু করলাম। দুই সিটে একজন যাত্রী নেওয়ায় আগে থেকেই বাস পরিপূর্ণ। তাই মাঝপথ থেকে যাত্রীরা বাসে উঠতে পারছেন না।

তিনি বলেন, গুলিস্তান থেকে বিজয় নগর আসতেই দীর্ঘ সময় যানজটে আটকে থাকতে হচ্ছে। বৃষ্টির পর একদিকে জলাবদ্ধতার ভোগান্তি, অন্যদিকে যানজটের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

ভিক্টর ক্লাসিকের চালক সাজেদুর রহমান বলেন, বৃষ্টিতে মানুষ বিভিন্ন জায়গায় আটকে ছিল। বৃষ্টি শেষ হওয়া মাত্রই সবাই রাস্তায় এসেছেন। তাই বৃষ্টির পর সড়কে যাত্রীর চাপ এবং যানজট দুটোই বেড়েছে। এছাড়া জলাবদ্ধতা থাকলে যানজট এমনিতেই সৃষ্টি হয়।

গুলিস্তানে বাসের জন্য অপেক্ষা করা শহিদুল ইসলাম নামের আরেক যাত্রী বলেন, সড়কে পানি জমে আছে। এরমধ্যে আবার শত শত যাত্রী বাসের অপেক্ষায় আছে। অনেকেই বাসে উঠতে পারছেন না। বৃষ্টি হলেই আমাদের মত সাধারণ মানুষদের ভোগান্তি পোহাতে হয়।

এদিকে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক বলেন, বেলা ১২টার দিকে রাজধানীতে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। কিছুক্ষণ বৃষ্টি হওয়ার পর তা আবার থেমে যায়। তবে একেবারেই বৃষ্টি থেমে যাবে এমন নয়। বৃষ্টি আবার শুরু হতে পারে।

আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- রংপুর, রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

নেইমারের কাঁধে অপ্রতিরোধ্য ব্রাজিল

যে চলে যেতে চায় …..